Sahittya

Literature magazine | Bangla & english worldwide

Poems

কয়েকটি কবিতা

কয়েকটি কবিতা

সুনীল শর্মাচার্য

কয়েকটি কবিতা

নীরব সম্মতি থাকে কারও ওপরে

নিভৃত মিলন শেষে রাধিকার দাহ

যায় না ধুলে দেহ যমুনার জলে

অতৃপ্ত উল্কাপাতে হৃদয় গরল…

ছেঁড়া তার বেজে ওঠে বেহাগের সুরে

বিস্মৃতি আঁকা থাকে মনের গোপনে

.

একটু শুশ্রূষা দিও বন্ধু। একটু শুশ্রূষা দিও

আজন্ম ভালোবাসার এইটুকুই দাবি।

পরিযায়ী দিন যায় আশার মৃত্যু দেখে

.

কেন চাও উদ্দামতা, প্রেম গাঢ় সমারোহ!

.

গাছেরা প্রতিদিন বলে মৃত্যুর কথা

পাতা ঝরিয়ে, পাতা ঝরিয়ে তার ইশারা

তবু আশা চায় যত স্বপ্ন বাচালতা

জন্মের ঘ্রাণে…

.

কত রক্ত, যুদ্ধের কথা ধ্বনিত ঐ আজানে

মন্দিরের ঘণ্টায় তীব্র অনাচারের আওয়াজ

আমাদের ব্যবহারে প্রকাশ প্রতিদিন সমাজে

সময় গড়িয়ে নিস্পৃহ বিকেল আসে এ পৃথিবীতে

.

শূন্যতা নেই কোনো—

আছে শুধু কিছু কপটতা আর কিছু ভাণ।

জীবনের মিথ্যে খেলায় জুয়াচোর জিতে যায়!

নক্ষত্রেরা তালি দেয় আকাশে। আর কিছু মেঘ

জল হয়ে ঝরে পড়ে পৃথিবীর বুকে!

.

বুকের ভেতর আদিগন্ত বিস্তার

সেখানে বাসা বেঁধেছে প্রণম্য বিরহ

তাকে ধার্য করে রাখি অকৃত্রিম আদরে

শুনশান দুপুরের নিরলস বিচারের প্রহসন

রক্ষা করে দিগন্তের সূর্য। সেই মুহূর্তটুকু শুধু

পার হয়ে যাওয়া; তারপর আনন্দ বিতান;

হু হু করে ছুটে আসবে অনাগত দিনের প্রত্যাশা

.

অর্বাচীন সন্ধ্যেগাছ বিষ ছড়ায় পাতায় পাতায়

আগামী প্রাণগুলো দূষিত গলিত প্রায়!

অজগ্রামে নদী জলে ঝাঁপ দেয় দামাল ছেলেরা

কালের সাপ দেখি তাদেরও দংশায়!

বিশ্বজোড়া মৃত্যুর ফাঁদ;

.

আজ দেখি, ঈশ্বরও এক দূষণের নাম!

.

জ্যোৎস্নায় পোড়া দেহ নিয়ে ছাদে ঘোরে

এক নিদ্রাহীন মানুষ

তার পোশাক অবিন্যস্ত, মুখে অপরিচ্ছন্নতা,

সে ছায়ামূর্তির মতো চলমান। হঠাৎই চাঁদ

ঢেকে মেঘ এলো আকাশজুড়ে। তা দেখে সে

ধীরে ধীরে শুয়ে পড়ে ছাদে। তার মুখে

খেলা করে অপার্থিব আলো। মেঘের

রাজ্যপাটে নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ল সে!

.

বিপন্ন আলোর পিছু ধাওয়া করে সবাই।

মাঝরাতে শোনা যায় হাহাকার।

ভ্রূ কুঁচকে উঠে বসে এক নারী

তার হাতে ঝরে পড়ে মৃত্যুর অক্ষর

হাহাকার থেমে যায়

পৃথিবীর গভীর থেকে ওঠে ধ্বনি…

.

১০

হেরে যাওয়া মানুষ যে

তারও কিছু নিজস্ব উচ্ছলতা আছে, প্রেম আছে,

আছে কিছু অবাক বিকেল। যখন

রাত্রি নামে নিগূঢ় প্রত্যয়ে

আছে সেই রাত্রিযাপন। আরও আছে কিছু কিছু

লুকোনো সম্পদ! তাই কেউ কেউ ভালোবাসে

হেরে যায় আজীবন!

.

১১

গণিকার মতো পসরা সাজায় রাত্রি।

ঝরে পড়ছে বিবর্ণ পাতা। তুমি কি আসবে?

পুড়তে পুড়তে গলে যাচ্ছি আমি। অপেক্ষার

শিয়রে রাখা অপাবৃত হাত। যদি না আসো

তবে আরো অন্ধকার, অপেক্ষার শেষে এ

জীবন চলে যাবে ছন্নছাড়া জীবনের গ্রাসে।

.

১২

জলপথে নেমে আসে পরী

অত্যাগসহন তার রূপ

যে পিপাসা মানুষের, দোয়েলের, ফড়িং-এর

তার কাছে হেরে যায় সব প্রবজ্যা।

দিনান্তে দেখা দেয় চাঁদ।

নিজস্ব ছোবল নিয়ে ঘুরে মরে সাপ!

.

১৩

চিরকালীন মুহূর্ত, এই অপেক্ষা

বলতে পারো তোমার জন্য

সময় দীর্ঘ বেদনা দেয়; বসে থাকি

নিজেকে কখনো রাত্রির নদী মনে হয়

.

মুগ্ধতা-বিষাদ-যন্ত্রণা মথিত

কত রকম অনুভূতি

অন্তঃপুরে আকাঙ্ক্ষায় বসে থেকে

সহসা সবই ভ্রম মনে হয়

.

ভ্রমের মাধুর্য চিনে, চিরকালীন মুহূর্ত

আরো লুপ্ত হয়!

.

…………………

পড়ুন

কবিতা

সুনীল শর্মাচার্যের একগুচ্ছ কবিতা

সুনীল শর্মাচার্যের ক্ষুধাগুচ্ছ

লকডাউনগুচ্ছ : সুনীল শর্মাচার্য

সুনীল শর্মাচার্যের গ্রাম্য স্মৃতি

নিহিত মর্মকথা : সুনীল শর্মাচার্য

প্রয়াণগাথা : সুনীল শর্মাচার্য

সুনীল শর্মাচার্যের কবিতাগুচ্ছ

অন্যভুবনের কবিতা

ঘোড়া : সুনীল শর্মাচার্য

মুহূর্তের কবিতা

অনুভূতি বেজে ওঠে

কয়েকটি কবিতা

মুক্তপদ্য

ভারতীয় কোলাজ

ইচিং বিচিং পদ্য : সুনীল শর্মাচার্য

গল্প

উকিল ডাকাত : সুনীল শর্মাচার্য

এক সমাজবিরোধী ও টেলিফোনের গল্প : সুনীল শর্মাচার্য

আঁধার বদলায় : সুনীল শর্মাচার্য

মুকুন্দ

প্রবন্ধ

কবির ভাষা, কবিতার ভাষা : সুনীল শর্মাচার্য

ধর্ম নিয়ে : সুনীল শর্মাচার্য

মতামত

ভারতীয় বাঙালি ও ভাষাদিবস

ভারতীয় বাম ও তাদের কিচ্ছা

মুক্তগদ্য

খুচরো কথা চারপাশে : সুনীল শর্মাচার্য

কত রকম সমস্যার মধ্যে থাকি

শক্তি পূজোর চিরাচরিত

ভূতের গল্প

বেগুনে আগুন

পরকীয়া প্রেমের রোমান্স

মুসলমান বাঙালির নামকরণ নিয়ে

এখন লিটল ম্যাগাজিন

যদিও সংকট এখন

খাবারে রঙ

সংস্কার নিয়ে

খেজুর রসের রকমারি

‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ পাঠ্যান্তে

মোবাইল সমাচার

ভালো কবিতা, মন্দ কবিতা

ভারতের কৃষিবিল যেন আলাদিনের চেরাগ-এ-জিন

বাঙালিদের বাংলা চর্চা : খণ্ড ভারতে

দাড়ি-গোঁফ নামচা

নস্যি নিয়ে দু-চার কথা

শীত ভাবনা

উশ্চারণ বিভ্রাট

কাঠঠোকরার খোঁজে নাসা

ভারতীয় ঘুষের কেত্তন

পায়রার সংসার

রবীন্দ্রনাথ এখন

কামতাপুরি ভাষা নিয়ে

আত্মসংকট থেকে

মিসেস আইয়ার

ফিরবে না, সে ফিরবে না

২০২১-শের কাছে প্রার্থনা

ভারতে চীনা দ্রব্য বয়কট : বিষয়টা হাল্কা ভাবলেও, সমস্যাটা কঠিন এবং আমরা

রাজনীতি বোঝো, অর্থনীতি বোঝো! বনাম ভারতের যুবসমাজ

কবিতায় ‘আমি’

ভারতে শুধু অমর্ত্য সেন নয়, বাঙালি সংস্কৃতি আক্রান্ত

ধুতি হারালো তার কৌলীন্য

ভারতের CAA NRC নিয়ে দু’চার কথা

পৌষ পার্বণ নিয়ে

প্রেমের ফাঁদ পাতা ভুবনে

শ্রী শ্রী হক কথা

বর্তমান ভারত

ভারতের এবারের বাজেট আসলে অশ্বডিম্ব, না ঘরকা না ঘাটকা, শুধু কর্পোরেট কা

ইন্ডিয়া ইউনাইটেড বনাম সেলিব্রিটিদের শানে-নজুল

ডায়েরির ছেঁড়া পাতা

অহল্যার প্রতি

উদ্ভট মানুষের চিৎপাত চিন্তা

তাহারা অদ্ভুত লোক

পৌর্বাপর্য চিন্তা-ভাবনা

নিহিত কথামালা

অবিভাজ্য আগুন

পাথরের মতো মৌন জিজ্ঞাসা

ভাবনা যত আনমনে

বিবেক পোড়ে অশান্ত অনলে

কালাকালের ডায়েরি

উন্মাদের নীতিকথা

করোনা, ভারতীয় জনগণ ও তার সমস্যা

Share us

সম্পাদক

Jebunnahar Joni

জেবুননাহার জনি। Jebunnahar joni. কবি ও গল্পকার। জন্ম : ১১ জানুয়ারি, নারায়ণগঞ্জ; পৈতৃকনিবাস মাদারীপুর। পিতা : আতাউর রহমান হাওলাদার, মাতা : নুরুননাহার খান। সমাজকল্যাণে বিএ সম্মানসহ এমএ। পেশা : শিক্ষকতা। লেখার বিষয় : কবিতা ও গল্প। প্রকাশিত গ্রন্থ : মেঘলা রাতে চাঁদ (গল্প, ২০০৭), বিরান পথের কাশবন (কবিতা, ২০১৭)। পুরস্কার : গাংচিল সাহিত্য পুরস্কার (২০১১), সমধারা সাহিত্য পুরস্কার (২০১৫)।